Opu Hasnat

আজ ২০ জুন বৃহস্পতিবার ২০২৪,

রাজধানীতে দীপংকর-তাপসীর যুগল আবৃত্তি-সন্ধ্যা শিল্প ও সাহিত্য

রাজধানীতে দীপংকর-তাপসীর যুগল আবৃত্তি-সন্ধ্যা

কামাল বারি: ফাল্গুনের মনোরম এক সন্ধ্যায় রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে হয়ে গেলো দীপংকর চক্রবর্তী ও তাপসী সাহার যুগল আবৃত্তি-সন্ধ্যা। নির্ধারিত সময়ের আগেই আমন্ত্রিত অতিথিরা উপস্থিত হন অনুষ্ঠানস্থল ব্রোঞ্জ কনফারেন্স রুমে। কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ থেকে শুরু করে কাজী নজরুল, শামসুর রাহমান, আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ, নির্মলেন্দু গুণ, শঙ্খ ঘোষ, দীপংকর চক্রবর্তী, কবিতা সিং, শেখ নজরুল, মণিভূষণ ভট্টাচার্য, কামাল বারি, আতাতুর্ক পাশা, মাহবুব আহসান শিমুল, জেনিস জিহা, সেলিনা আক্তার প্রমুখ কবির কবিতা আবৃত্তি করেন তাপসী সাহা। তাপসী সাহার আবৃত্তি সন্ধ্যার বিশেষত হচ্ছে- খ্যাতিমান কবিদের পাশাপাশি অখ্যাত কবিদের কবিতা অত্যন্ত দরদিকণ্ঠে উপস্থাপন। তার স্বতন্ত্র কণ্ঠের প্রতিটি কবিতার উপস্থাপন ছিলো আকর্ষণীয়। আবৃত্তি গতানুগতিক ধারার নয়- বৈচিত্র্যপূর্ণ। তাপসী যেহেতু কবিতা লিখেন- সে কারণে তিনি নিজের কবিতাও রেখেছেন আবৃত্তির তালিকায়। তার বিশেষকরে মা এবং বাবাকে নিয়ে রচিত কবিতা দুটি ছিলো অত্যন্ত হৃদয়স্পর্শী। পরিবেশনের সময় আবেগে তার কণ্ঠ রুদ্ধ হয়ে আসছিলো- চোখ ভরে উঠছিলো জলে। 

দুই পর্বে ভাগ করে তাপসী সাহা তার নান্দনিক বাচিক পরিবেশনা উপহার দেন কবিতাপ্রেমী দর্শকশ্রোতাদের। শেষে, রবীন্দ্রনাথের কালজয়ী উপন্যাস ‘শেষের কবিতা’ থেকে আবৃত্তি করেন কবি ও গুণী আবৃত্তিকার দীপংকর চক্রবর্তী। তার প্রমিত উচ্চারণে ভরাট কণ্ঠের আবৃত্তি ছিলো উপভোগ্য। দর্শকবৃন্দ উচ্ছ্বসিত হয়ে করতালির মাধ্যমে আবৃত্তিকারদ্বয়কে উৎসাহিত করেন। 

উল্লেখ্য, আবৃত্তিকার ও কবি তাপসী সাহা যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী কিডনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। তার জীবনসঙ্গী পবিত্র সাহাও প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ। সর্বশেষে, পবিত্র সাহা সুধী দর্শকদের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

কামাল বারি, কবি ও সাংবাদিক