Opu Hasnat

আজ ২১ মে শনিবার ২০২২,

আন্দোলনরত সব শিক্ষার্থী গণঅনশনে যোগ দিবে জাতীয়শিক্ষা

আন্দোলনরত সব শিক্ষার্থী গণঅনশনে যোগ দিবে

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে আন্দোলনরত সব শিক্ষার্থী গণঅনশনে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন।
সোমবার দুপুর দেড়টায় সংবাদ সম্মেলন করে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

সংবাদ সম্মেলন তারা বলেন, চিকিৎসা চলাকালে কোনো অনশনকারী হাসপাতালের খাবার গ্রহণ করেনি। এবার আমরা সব শিক্ষার্থী গণঅনশনে যোগ দেব।

এদিকে, অনশনরত ২৪ শিক্ষার্থীদের মধ্যে অসুস্থ হয়ে ২০ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। সোমবার দুপুরে অনশনের ১২০ ঘণ্টায় গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, এখন পর্যন্ত অনশনের পঞ্চমদিনে ২০ জন শিক্ষার্থী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তাদের অবস্থা খুবই খারাপ। সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ ও মাউন্ট এডোরা হাসপাতালে এসব শিক্ষার্থীদের ভর্তি করানো হয়েছে।

হাসপাতালে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অনশনরত শিক্ষার্থীদের অবস্থা ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। তাদের অনেককেই ইমার্জেন্সিতে ভর্তি করানো হয়েছে। অনশন না ভাঙলে তাদের অনেকই কোমায় চলে যেতে পারে। এখনো যদি তারা অনশন ভাঙে তাদের পরিপূর্ণ রিকভারি করতে একমাসেরও বেশি সময় লাগবে। যত দ্রুত সম্ভব তাদেরকে অনশন ভাঙাতে হবে।

আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী জানান, ওসমানী মেডিকেলে আমাদের ৭ জন শিক্ষার্থী ভর্তি আছেন। তারা আজ আবার অনশনস্থলে ফিরে আসবে। এখানে এসে তারা অনশন চালিয়ে যাবে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) বেগম সিরাজুন্নেসা হলের অব্যবস্থাপনা নিয়ে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে প্রথমে হল প্রভোস্ট সহযোগী অধ্যাপক জাফরিন আহমেদ লিজার পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন শুরু করে ঐ হলের ছাত্রীরা। ছাত্রীদের আন্দোলনের দ্রুত সমাধান না হওয়ায় তা গণআন্দোলনে রুপ নেয়। এক পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইআইসিটি ভবনে ভিসিকে অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ অনুযায়ী পরে ভিসির মদদে পুলিশ শিক্ষার্থীদের উপর হামলা চালায়। ভিসির এমন সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। এর জেরে শিক্ষার্থীরা ভিসির পদত্যাগ দাবি করে। গত বুধবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভিসিকে স্বেচ্ছায় পদত্যাগের আল্টিমেটাম দেয়। ঐ সময়ে ভিসি পদত্যাগ না করায় শিক্ষার্থীরা অনশন শুরু করে।