Opu Hasnat

আজ ১৮ সেপ্টেম্বর শনিবার ২০২১,

ব্রেকিং নিউজ

খাগড়াছড়িতে করোনা উপসর্গে ২ জনের মৃত্যু, ১০৫ বছরের বিজয় চাকমার করোনা জয় খাগড়াছড়ি

খাগড়াছড়িতে করোনা উপসর্গে ২ জনের মৃত্যু, ১০৫ বছরের বিজয় চাকমার করোনা জয়

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাতে লকডাইনে করোনা উপসর্গে ২জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুরে আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এ দু’জন মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন ডা: নুপুর কান্তি দাশ।

এদিকে পানছড়ি উপজেলার বিজয় গিরি চাকমার বয়স এখন একশত পাঁচ। তিনি উপজেলার ৪নং লতিবান ইউপির কুড়াদিয়াছড়া উগ্যজাই পাড়ার মৃত রামচন্দ্র চাকমার সন্তান। গত ১৫ই জুলাই পানছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ তার করোনা পজেটিভ ঘোষণা করলে পরিবারের সবাই হতাশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে।

কিন্তু উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: অনুতোষ চাকমা ও কোভিড-১৯ এর পানছড়ি উপজেলার ফোকাল পার্সন উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর তৎজিম চাকমার দিক নির্দেশনায় অবশেষে করোনা জয় করেন একশত পাঁচ বছর বয়সী বিজয় গিরি চাকমা। রোববার (২৫ জুলাই) দুপুর ১২টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তার নেতৃত্বে তার নিজ বাড়ি গিয়ে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে করোনামুক্ত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা জানান, এ বয়সে করোনা জয় করা একটা মাইল ফলক। বিজয় গিরির ছেলে তুষিত কুমার চাকমা ও মেয়ে সোনালী চাকমা জানায়, আমরা বাবার আশা ছেড়ে দিয়েছিলাম। কিন্তু ডা: অনুতোষ চাকমা ও তৎজিম চাকমার আন্তরিকতা, দিকনির্দেশনা পাশাপাশি উপর ওয়ালার আশির্বাদে বাবাকে করোনামুক্ত করে বাঁচানো সম্ভব হয়েছে। বিজয় গিরি চাকমা এলাকায় দানবীর হিসেবেই পরিচিত। নালকাটা কমিউনিটি ক্লিনিকে ৫শতক, মন্দিরে ২০শতক, কে.জি. স্কুলে ৪০শতক, নালকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ে ৫০শতক, শান্তিপুর অরণ্য কুটিরে ৫একর, শিলাচার বন বিহারে ১০একর ও নালকাটা উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে বৌদ্ধ মন্দিরের জন্য রাস্তা দান করে এলাকায় দানবীর হিসেবেই সুনাম অর্জন করেছেন।

অপরদিকে, খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় লকডাউনে কঠোর অবস্থানে মাঠে কাজ করছে উপজেলা প্রশাসন। কঠোর লকডাউনে সরকারি বিধিনিষেধ অমান্যকারীদেকে প্রতিদিন জেল জরিমানার করছে দীঘিনালা উপজেলায় দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো: আব্দুল্লাহ আল ইমরান।

নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট্র মো: আব্দুল্লাহ আল ইমরান বলেন, সরকারী প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আইন শৃংখলা বাহিনীর সম্বনয় আমরা করোনাকালীন সময় সরকারী বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের জেল জরিমানা করা হচ্ছে প্রতিদিন এবং সরকারী বিধিনিষেধ মেনে চলার জন্য আহবান করছি। তবে দীঘিনালা উপজেলার জনগণ সরকারী বিধিনিষেধ প্রতি শ্রদ্ধাশীল প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি বাহিরে বের হয় কম। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সরকারী বিধিনিষেধ অমান্য করে ইজিবাইকের গ্যারেজ খোলার দায়ে কবাখালী বাজারের এককে ১হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অন্যদিকে সারাদেশের সাথে পাল্লা দিয়ে পাহাড়ি জেলা খাগড়াছড়িতেও বাড়ছে প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমনও। প্রতিদিনই হু হু করে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যাও। এ পরিস্থিতিতে করোনার সংক্রমন রোধে মাটিরাঙায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মানুষের জীবন রক্ষায় সরকারের দেয়া কঠোর বিধি-নিষেধের চতুর্থ দিনে সোমবার (২৬ জুলাই) মাটিরাঙ্গায় ছয় জনকে অর্থদন্ড করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

সরকারি বিধি-নিষেধ অমান্য করে দোকান খোলা রাখায় তিন দোকানি এবং অপ্রয়োজনে ঘোরাফেরা ও মাস্ক ব্যবহার না করায় তিন জনকে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মো: হেদায়েত উল্যাহ। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও বিজিবি ও পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সরকারের বিধি-নিষেধ প্রতিপালনের আহ্বান জানিয়ে মাটিরাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অ.দা) মো: হেদায়েত উল্যাহ বলেন, জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নির্দেশে আমরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের জন্য মাঠে ময়দানে রয়েছি। তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলারও আহ্বান জানান।

 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর