Opu Hasnat

আজ ১৮ জুন শুক্রবার ২০২১,

ব্রেকিং নিউজ

অসহায় বীরাঙ্গনা মায়া রানীকে ঘর নির্মান করে দিচ্ছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক ফরিদপুর

অসহায় বীরাঙ্গনা মায়া রানীকে ঘর নির্মান করে দিচ্ছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক

অসহায় নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) মায়া রানী সাহাকে ঘর নির্মান করে দিচ্ছেন ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার। শনিবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের শোভারামপুর এলাকার নিঃসন্তান নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) মায়া রানী সাহার ঘরের কাজের উদ্বোধন করেন ফরিদপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা। এ সময় উপজেলার কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাসুম রেজা জানান, ফরিদপুরে মোট ৫ জন বীরাঙ্গনা রয়েছেন। এদের প্রত্যেককে একটি করে ঘর নির্মান করে দেবে সরকার। তার থাকার জায়গার অভাবের কারনে একটু আগে ভাগেই আমরা ডিজাইন ঠিক রেখে নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) মায়া রানী সাহাকে একটি ঘর তৈরি করে দিচ্ছি জেলা প্রশাসকের নির্দেশে।

পরে তিনি শুভেচ্ছা স্বরুপ মায়া রানীর হাতে ১০ কেজি চাল,  ৫ কেজি আলু, ২ কেজি তেল, লবনসহ নানা ধরনের খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন।

উল্লেখ্য, মহান মুক্তিযুদ্ধে ফরিদপুরের শোভারামপুরে নিজ বাড়িতে ১৬ বছর বয়সে হানাদার বাহিনী ও স্থানীয় দোসরদের দ্বারা নির্যাতিত হন নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) মায়া রানী সাহা।

তবে তার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি না থাকায় মানবেতর জীবন করতে হচ্ছিলো। বিষয়টি ফরিদপুরে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানার সাথে সাথে তার রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির ব্যবস্থা করেন।

জেলা প্রশাসক অতুল সরকার গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত সাপেক্ষে একটি প্রতিবেদন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠান। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তাঁকে স্বীকৃতি স্বরূপ নারী মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) গেজেট ভুক্ত করে। রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে উপ সচিব রবীন্দ্র নাথ দত্ত স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে তাঁর নাম যুক্ত করা হয়।

স্বীকৃতির পরে বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা বীরাঙ্গনা মায়া রানী সাহাকে ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক তাঁর কার্যালয়ে গত ২০২০ সালের২১ ডিসেম্বর সম্মাননা জানান।