Opu Hasnat

আজ ১৬ জুন রবিবার ২০২৪,

জোট করলে জাপা বড় দলের সাথে জোট করবে : জি এম কাদের নীলফামারী

জোট করলে জাপা বড় দলের সাথে জোট করবে : জি এম কাদের

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় উপনেতা  গোলাম মুহাম্মদ কাদের বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে  অবস্থা বুঝে ব্যবস্থা নিবো। প্রয়োজনে এককভাবে ৩০০ আসনেই প্রার্থী দেয়া হবে। দেশ, জনগণ ও পার্টির স্বার্থে জোটবদ্ধভাবে অংশগ্রহণে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। যদি জোট করি তাহলে অবশ্যই বড় দলের সাথেই যাবো। যাতে মানুষের জন্য কাজ করতে পারি।

তিনি সোমবার (২৯ মে) বিকেলে নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই কথা বলেন। এসময় তিনি আরও বলেন, আওয়ামীলীগ সবচেয়ে আমাদের বেশী ক্ষতি করেছে। তবে জাতীয় পার্টি এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়েছে। দেশে দ্রব্যমূল্য উর্ধগতি খেটে খাওয়া মানুষ বাজারে গিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।  উন্নয়নের নামে সরকার দলীয় এমপিরা ঢাক ঢোল পিটিয়ে সাধারণ মানুষের মন জয় করতে পারছে না।  আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ হইলে আওয়ামীগের অনেক এমপি প্রার্থী জামানত হারাবে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নীলফামারী-৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আহসান আদেলুর রহমান আদেল, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর মহানগর সাধারণ সম্পাদক এস এম ইয়াসির, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও রংপুর জেলার সদস্য সচিব হাজী আব্দুর রাজ্জাক, নীলফামারী জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব এ কে এম সাজ্জাদ পারভেজ, উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক ও ইকু গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব সিদ্দিকুল আলম সিদ্দিক, পৌর জাতীয় পার্টির আহবায়ক  ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাকিব খান, সদস্য সচিব আলতাফ হোসেন, অরুন, নীলফামারী জেলা যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক ভুট্টু প্রমুখ।

তিনি আরও বলেন, নীলফামারী-৪ আসনের সৈয়দপুর ও কিশোরগঞ্জ উপজেলায় পার্টির সাংগঠনিক ভিত্তি মজবুত বলেই একাধিক নেতা জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হতে চায়। এজন্য অবশ্যই তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মতামতকে গুরুত্ব দেয়া হবে। জনসমর্থনহীন ব্যক্তিকে মনোনয়ন দিলে আসন হারানোর আশংকা থাকে। তাই এমন প্রার্থী যেই হোক তাকে বাদ দেয়া হবে। কাউকে চাপিয়ে দেয়া হবেনা। মনোনয়ন বোর্ডই এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিবে।