Opu Hasnat

আজ ১৯ জুলাই শুক্রবার ২০২৪,

নীলফামারীতে জনপ্রিয় হচ্ছে রেশম গুটি চাষ কৃষি সংবাদনীলফামারী

নীলফামারীতে জনপ্রিয় হচ্ছে রেশম গুটি চাষ

সম্পূর্ণ বিনা খরচে লাভবান হতে পেরে নীলফামারীতে হতদরিদ্র্য নারী-পুরুষের মাঝে রেশম গুটি চাষ ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দারিদ্র্য বিমোচনে ভূমিহীন, গৃহহীন নারী-পুরুষের কর্মসংস্থানের সৃষ্টির লক্ষ্যে রেশম সম্প্রসারণ কেন্দ্রের মাধ্যমে এই প্রকল্প পরিচালিত হচ্ছে। ফলে কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে কয়েক হাজার নারী-পুরুষের।

নীলফামারীতে অসচ্ছল মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে ১৯৮৯ সালে মাত্র তিন জন চাষি নিয়ে রেশম গুটি চাষ শুরু করে রেশম সম্প্রসারণ কেন্দ্র। প্রথমদিকে এ চাষে মানুষের আগ্রহ কম থাকলেও বর্তমান এর চিত্র ভিন্ন। কয়েক হাজার নারী-পুরুষ গুটি চাষ করে হয়েছেন সাবলম্বী। রেশম গুটি চাষিদের আর্থিক ও কারিগরি সহায়তা করছে রেশম সম্প্রসারণ প্রকল্প। এতে বছরে উৎপাদিত হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ হাজার কেজি গুটি। এছাড়া পলু পোকার খাবারের জন্য ২ লাখ ৬০ হাজার তুত গাছ রোপণ করা হয়েছে ১২০ বিঘা জমিতে।চাষিরা বলেন, বিনা খরচে অধিক লাভ করা সম্ভব রেশম চাষে। এতে সংসারের কাজের পাশাপাশি নারীরা এগিয়ে আসছেন এ কাজে।

এদিকে পরিধি বৃদ্ধি পেয়ে প্রকল্পটি দারিদ্র্য বিমোচন সহায়ক হবে বলে জানান সৈয়দপুর রেশম সম্প্রসারণ কেন্দ্র ম্যানেজার মো. রেজাউল করিম। তিনি বলেন, এটা চলমান প্রক্রিয়া। আমরা আশা করছি এ প্রকল্পের পরিধি ক্রমেই বৃদ্ধি পাবে। এর বিস্তৃতিতে এলাকায় দারিদ্র্য বিমোচনে সহায়ক হবে। জেলার ৬টি উপজেলায় রেশম গুটি চাষের সঙ্গে জড়িত প্রায় ২ হাজার মানুষ। 

এই বিভাগের অন্যান্য খবর