Opu Hasnat

আজ ৯ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার ২০২৩,

ব্রেকিং নিউজ

লালন সাঁইজির অনুসারীদের উপর হামলার প্রতিবাদে প্রেসক্লাবে মানববন্ধন রাজধানী

লালন সাঁইজির অনুসারীদের উপর হামলার প্রতিবাদে প্রেসক্লাবে মানববন্ধন

সম্প্রতি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর লাউবাড়িয়ায় ফকির লালন সাঁইজির অনুসারীদের উপর আইন বহির্ভূত সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও বিচার দাবি জানিয়ে সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ-এর আয়োজনে শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) সকাল ১০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সমানে এক শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে।

সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ -এর কেন্দ্রীয় আহ্বায়ক পীরে তরিকত আল্লামা তৌহিদুল ইসলাম চিশতী নিজামীর সভাপতিত্বে এবং কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব মাওলানা আনিসুর রহমান জাফরীর পরিচালনায়- সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ এর অন্যতম উদ্যোক্তা সুফি জহিরুল হক চিশতী সুফি সাধুদের উপর হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে বলেন-
'সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ' নিঃসন্দেহে একটি ভালো পদক্ষেপ। যারা সুফিবাদ তথা গুরুবাদকে মনে-প্রাণে বিশ্বাস করেন এবং বুকে লালন করেন তারা হোক হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান কিংবা অন্য কোন ধর্মের সকলের জন্য এর দ্বার উন্মুক্ত।

এ সংগঠনের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ মুজিব বলেন- "সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ' প্রচলিত রাজনীতি ও ধর্মের গন্ডির সম্পূর্ণ সংকীর্ণতা মুক্ত আধ্যাত্মিক ও মানবসেবামূলক একটি প্লাটফর্ম হিসেবে ইতোমধ্যে আত্মপ্রকাশ করেছে। দেশের যেকোন প্রান্ত থেকে আগ্রহীগণ নিঃস্বার্থভাবে এই প্লাটফর্মে কাজ করতে পারবেন।

সুফি মাঈনুল কবীর চিশতী বলেন- "সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ আহলে বাইতকে ভালবেসে তত্ত্ব ও মতবাদের বিভাজন চায় না, সাম্য, মানবিক মর্যাদা, ইনসাফ ও অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জাতীয় ঐক্য চায়।

সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ -এর অন্যতম উদ্যোক্তা সৈয়দ গোলাম মুইনুদ্দীন হিয়াজুড়ী বলেন- "ইসলামের সাথে উগ্রবাদের কোন সম্পর্ক নাই।" কোরানে এসেছে- তোমাদের জন্য তোমাদের আমল (কাজ/কর্ম) আমার জন্য আমার আমল-(২৮:৫৫, ৪২:১৫) 
ধর্মের মধ্যে জোর-জবরদস্তি নাই-(২:২৫৬)
তোমাদের জন্য তোমাদের ধর্ম আমাদের জন্য আমাদের ধর্মঃ কাফিরুন-(৬)
তোমরা তোমাদের কাজ করো আমি আমার কাজ করি-(৬:১৩৫, ১১:৯৩, ১২১, ৩৯:৩৯, ৪১:৫)
তোমরা তোমাদের রাস্তা দেখ আমরা আমাদের রাস্তা দেখছি (৭:৭১)
"ওয়াল্লাহু লা ইউহিব্বুল ফাসাদ" (আল্লাহ্ অশান্তি ভালবাসেন না) ২:২০৫ দ্র,
“আল ফিতনাতু আসাদ্দু মিনাল কিতাল” ফিতনা হত্যার চেয়েও জঘন্য (কোরআন-২:১৯১)

উক্ত সংস্থার উদ্যোক্তাদের মধ্য হতে এতে উপস্থিত ছিলেন- হাজি ইব্রাহীম খলিল প্রধান, সাংবাদিক আব্দুল মালেক, মাওলানা মুহিউদ্দীন চিশতী নেজামী, পীরজাদা আইয়ূব আলী শাহ, অধ্যাপক জাকির হোসাইন আনোয়ারী, ফকির আহম্মদ আলী চিশতী, ফকির মুহসিন শাহ, মস্তান আকবর আকবর আলী কাদরী, আলহাজ আবুল হোসাইন কাদরী, ইউসুফ রহমান কাদরীসহ অনেকে। এতে আরো বক্তব্য পেশ করেছেন- সুফিবাদ সার্বজনীন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ-এর কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এবং বিভিন্ন দরবারের পীর মাশায়েখ ও সুফিবাদী সংগঠকগণ।

এসময় সর্বস্তরের বক্তারা বিচার দাবি করে বলেন- কোন অপরাধীই আইনের উর্ধে নয়। ধর্মীয় উগ্রবাদ রাষ্ট্রীয় আইনের জন্য হুমকি স্বরূপ! এই জঘন্য বর্বরতার সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্ট সবাইকে আইনের আওতায় এনে রাষ্ট্রীয় আইনে দ্রুত বিচার করতে হবে। যাতে এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা আর যেন শান্তিপ্রিয় বাংলাদেশে পুনরাবৃত্তি না ঘটে।