Opu Hasnat

আজ ২৮ নভেম্বর সোমবার ২০২২,

কংগ্রেসের সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে আন্তর্জাতিক

কংগ্রেসের সভাপতি মল্লিকার্জুন খাড়গে

দুই দশক পর গান্ধী পরিবারের বাইরে দেশটির জাতীয় কংগ্রেসে কেউ সভাপতির দায়িত্ব পেলো। এবার শশী থারুরকে হারিয়ে সভাপতির দায়িত্ব পেলেন মল্লিকার্জুন খাড়গে।
 
বুধবার (১৯ অক্টোবর) গণনা শেষে খাড়গে মোট ৯৩৮৫টি ভোটের মধ্যে ৭,৮৯৭ ভোট পেয়ে, তার প্রতিপক্ষ শশী থারুরকে পরাজিত করেন। শশী থারুর পেয়েছেন মাত্র ১,০৭২টি ভোট।

খাড়গে অন্তর্র্বতীকালীন কংগ্রেস সভেনেত্রী হিসেবে দলের হাল ধরেছিলেন ইন্দিরা পুত্রবধূ সোনিয়া গান্ধী। যিনি ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে এই পদে অধিষ্ঠিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, কংগ্রেস সভাপতি পদে যোগ্য ব্যক্তির লড়াই বহুদিন ধরেই চলছিল। এদিন স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় নয়া দিল্লির কংগ্রেস সদর দফতরে ভোট গণনা শুরু হয়। দলের সভাপতি পদে মল্লিকার্জুন খাড়গে ও শশী থারুরের মধ্যে কে হবেন জাতীয় কংগ্রেসের সভাপতি তা নিয়েই কর্মী-সর্মথকদের মধ্যে ছিল জোর জল্পনা। গান্ধী পরিবারের বাইরে দলের সভাপতি নির্বাচনে অবশেষে শশী থারুরকে হারিয়ে দলের সভাপতির মুকুট জিতে নিলেন দলের অন্যতম প্রবীণ নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে। যদিও জানা যাচ্ছে, গান্ধী পরিবারের প্রতি খাড়গের বিশ্বাসযোগ্যতার ফলস্বরূপ এই প্রাপ্তি।

এদিন ভোট গণনা শুরু হওয়ার পরই ট্যুইট করেন কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুর। তিনি টুইটে বলেন, যারা এই ঐতিহাসিক মুহূর্তটিকে আমাদের রাজনীতির উন্নয়নে একটি মাইলফলক তৈরি করতে অবদান রেখেছেন তাদের আমি ধন্যবাদ জানাই।

তবে হারের পর থারুর এক বিবৃতিতে বলেন, দলের সভাপতি হওয়া একটি বড় সম্মানের পাশাপাশি একটি বড় দায়িত্ব। ভারতজুড়ে কংগ্রেসের অনেক শুভানুধ্যায়ীর আশা ও আকাঙ্খাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া একটি চ্যালেঞ্জের কাজ। প্রবীণ নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গের ওপর দলের নেতা-কর্মীরা সেই দায়িত্ব দিয়েছেন। আশা রাখি উনি সেই দায়িত্ব যথাযথ পালন করবেন।

ভারতের জাতীয় কংগ্রেসের ১৩৭ বছরে ইতিহাসে ষষ্ঠবারের জন্য সভাপতি পদে নির্বাচন গত সোমবার (১৭ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর আগে দলের সভাপতি পদের জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৩৯, ১৯৫০, ১৯৭৭, ১৯৯৭ এবং ২০০০ সালে। 

এবার ২২ বছর পর দলের সভাপতি পদের নির্বাচন ঘিরে কর্মী-সমর্থকদের মধ্যেও উন্মাদনা ছিল চোখে পড়ার মত। আর সেই নির্বাচনে দীর্ঘ দুই দশকের বেশি সময়ের পর, গান্ধী পরিবারের বাইরের দলের অন্যতম সিনিয়ার নেতা মল্লিকা খাড়গে ভারতের জাতীয় কংগ্রেসে দ্বিতীয়বারের জন্য সভাপতি নির্বাচিত হলেন। গান্ধী পরিবারের বাইরে এর আগে ওই পদে ছিলেন সীতারাম কেশরী।