Opu Hasnat

আজ ৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ২০২২,

ব্রেকিং নিউজ

শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে স্বপ্নপুরণ হলো প্রতিবন্ধি পপি‘র নেত্রকোনা

শেখ কামালের জন্মদিন উপলক্ষে স্বপ্নপুরণ হলো প্রতিবন্ধি পপি‘র

পপি খানম এর বয়স তখন ৫ বছর। পোলিওতে আক্রান্ত হয়ে তাঁর দু‘টো পা অচল হয়ে যায়। আজ থেকে ২৯ বছর আগে তাঁর অসচ্ছল পরিবারের পক্ষে তাকে চিকিৎসা করানো সম্ভব হয়নি। অচল দু‘টো পা নিয়ে কারো বোঝা হয়ে না থেকে সংসারের কাজে সহায়তা করেছে পপি। বড় স্বাধ ছিলো পড়াশোনা করবে। মানুষের মতো মানুষ হয়ে দেশ সেবা করবে। বিধি বাম হয়ে তাঁর ভাগ্যে নেমে এলো অমানিষা। সে থেকে আর স্কুলে যাওয়া হলো না তাঁর। ঘরেই পরের বোঝা হয়ে পরে আছে সে। বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দেয়া হুইলচয়ার নিতে এসে কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদিককে এ কথা গুলো বলছিলেন পপি খানম। 

এ নিয়ে শনিবার সকালে পপি খানমের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ৪ ভাই আর ৩ বোনের মধ্যে পপি সবার বড়। নিজের সব সুখ বিসর্জন দিয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধি হিসেবে ঘরে বসে থেকেই জীবনের প্রদীপ অস্তমিত হতে চলেছে। ৩ ভাই বিয়ে করে অন্যত্র চলে গেছে, সংসারের কোন খোজ নেয়না তারা। ১ বোন মৃত্যুর পর অন্য বোনেরও বিয়ে হয়ে যায়। ১০বছর আগে মায়ের মৃত্যুর পর বৃদ্ধ বাবা ও ১ভাই কে নিয়ে চলে তাদের সংসার। কাঠের চকিতে বসে সংসারে রান্নার কাজ করে পপি। কিছুদিন আগে ছোট ভাইকে বিয়ে করিয়েছে। বাবা, ভাই আর ভাবিকে নিয়ে কোন রকম চলছে তাদের সংসার। ভাই একটি বিস্কুট বেকারীতে কাজ করে, বৃদ্ধ আর প্রতিবন্ধি বড় বোনকে নিয়ে দুর্গাপুর উপজেলার কাকৈরগড়া ইউনিয়নের খাঁ পাড়া এলাকায় অন্যের বাড়ীতে বসবাস করছে তারা। 

পপি খানম বলেন আমি একজন শারীরিক প্রতিবন্ধি। ১টি হুইলচেয়ার পাবো জীবনেও ভাবিনি। কাঠের চকিতে বসেই জীবন পার করার প্রাক্কালে ১টি হুইলচেয়ার কেনা আমার স্বপ্ন ছিলো। ইউএনও স্যার আমার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করলো। এখন নতুন করে বেঁচে থাকতে ইচ্ছে করছে। এখন হইলচেয়ারে বসে এদিক ওদিক যেতে পারবো। আমি আর কারো বোঝা হয়ে থাকতে চাইনা। আমি দু‘চোখ ভরে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা দেখে মরতে চাই। সরকারি ভাবে আমায় একটি থাকার ঘর দিলে আমি খুবই উপকৃত হবো। চেষ্টা করলে পারা যাবে না এমন কোনো কাজ নেই। বাড়ীর পাশে একটি ছোট দোকান করে দিলে, তা দিয়েই বৃদ্ধ বাবাকে নিয়ে চলতে পারবো। উপজেলা ও জেলা প্রশাসন সহ দেশের ধন্যাঢ্য ব্যক্তিদের কাছে আমার অনুরোধ, আমায় দিকটা বিবেচনা করে আমায় সহায়তা করুন। 

এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মৎস্য অফিসার সুমন কুন্ডু, উপজেলা প্রশাসনিক কর্মকর্তা সুবল রঞ্জন কর, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মুহাম্মদ নাসির উদ্দিন প্রমুখ। 

ইউএনও রাজীব-উল-আহসান বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে নানা কর্মসূচীর মধ্যে প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাস করা প্রতিবন্ধি পপি খানম কে ১টি হুইলচেয়ার উপহার দিতে পেরে আমি আনন্দিত। এছাড়া পপিকে সাবলম্বি করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে। আসুন এই শোকের মাসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে, নিজ নিজ অবস্থান থেকে অন্তত ১০টি ভালো কাজ করি। দেখবেন কর্মের মাঝেই আপনি বেঁচে থাকবেন।