Opu Hasnat

আজ ৬ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ২০২২,

ব্রেকিং নিউজ

সৈয়দপুরের খাদ্য গুদাম শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার নীলফামারী

সৈয়দপুরের খাদ্য গুদাম শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার

মজুরি পুনঃনির্ধারণের দাবিতে নীলফামারীর সৈয়দপুর সরকারি খাদ্য গুদামে (এলএসডি) মালামাল লোড আনলোড কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। আট দিন পর শনিবার (৬ আগস্ট)  সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নেন শ্রমিকেরা।

বেলা সাড়ে ১১টায় সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন সরকারি খাদ্য গুদামে আসেন। এ সময় তিনি খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কার্যালয়ে খাদ্য গুদামের শ্রমিকদের  নিয়ে বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সৈয়দপুর সরকারি খাদ্য গুদাম শ্রমিক সর্দার মো. জিকরুল হকসহ অন্যান্য শ্রমিকেরা উপস্থিত ছিলেন। 

এ সময়  সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোখছেদুল মোমিন শ্রমিকদের কাছে তাদের  মজুরি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিদ্যমান নানাবিধ সমস্যার কথাগুলো মনোযোগ ও ধৈর্য্য সহকারে শোনেন।

বৈঠকে সৈয়দপুর সরকারি খাদ্য গুদামের খাদ্য পরিদর্শক ও ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শামীমা নাছরীন ও  সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এ বৈঠকে সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে আগামী ডিসেম্বর মাসের  মধ্যে স্থানীয় সরকারি খাদ্য গুদামে (এলএসডি)  মালামাল লোড-আললোড কাজের ঠিকাদার নিয়োগসহ মজুরি পুনঃনির্ধারণের বিষয়ে আশ্বাস প্রদান করেন। তাঁর ওই আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে সৈয়দপুর সরকারি খাদ্য গুদাম শ্রমিকেরা তাদের আহুত কর্মবিরতি কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন।  এ সময় সেখানে উপস্থিত খাদ্য গুদাম শ্রমিক সর্দার জিকরুল হক উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।

সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. মোখছেদুল মোমিন বলেন, সরকারি খাদ্য গুদামের শ্রমিকদের মজুরি পুনঃনির্ধারণের বিষয় নিয়ে তাদের সঙ্গে আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। আগামীতে সরকারি খাদ্য গুদামের মালামাল লোড আনলোড কাজে ঠিকাদার নিয়োগ ও নিয়ম নীতি অনুযায়ী তাদের মজুরি পুনঃনির্ধারনের আশ্বাস পেয়ে তারা (শ্রমিক) কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। আশা করি  আজ থেকেই খাদ্য গুদাম শ্রমিকেরা  মালামাল লোড-আনলোড কাজে যোগ দেবেন।

উল্লেখ্য, মজুরি পুনঃনির্ধারণের দাবিতে গত ২৮ জুলাই থেকে সৈয়দপুর সরকারি খাদ্য গুদামের মালামাল লোড আনলোড কাজে নিয়োজিত ৪১ জন শ্রমিক কর্মবিরতি শুরু করেন। গত এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলা এ কর্মবিরতির কর্মসূচির কারণে স্থানীয় সরকারি খাদ্যগুদামে মারাত্মক অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।